,

এই ছবিটি এভ্রিলের নয়…

মিডিয়ামেইল:  ফেসবুক জুড়ে ঘুরছে একটি ছবি। সেই ছবিটি দেখে অনেকেই ভাবছেন, এটিই জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল। ছবিটিতে দেখা যায়, একজন নারী একজন পুরুষের পাশে শুয়ে আছেন। এছাড়াও সামাজিক গণমাধ্যমে ঘুরতে থাকা একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে- জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের বাইকের পেছনে চড়ে আছেন একজন ব্যক্তি। বাইকের ব্যক্তি ও বিছানার ব্যক্তিকেও এক করে দেখছেন অনেকেই।

এ ছবিটির সম্পর্কে নিশ্চিত হতে প্রিয়.কম যোগাযোগ করতে চেষ্টা করে এভ্রিলের সঙ্গে। একাধিকবার ফোন ও টেক্সট করার পরও অপর প্রান্ত থেকে সাড়া পাওয়া যাচ্ছিল না এভ্রিলের। পরবর্তীতে কয়েকবার চেষ্টার পর একজন ফোন ধরেন। তিনি নিজেকে এভ্রিলের সহকারী পরিচয় দিয়ে জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের ওই ছবি সম্পর্কে বলেন- ‘ছবিটি জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের নয়’। কিন্তু কথাটি এভ্রিলের মুখ থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন এভ্রিল এখন ব্যস্ত আছেন। 

ওপর দিকে, এই ছবি ও ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে মুসা বাপ্পি নামে একজন ফেসবুক ব্যবহারকারীর মাধ্যমে। তিনি হিউম্যান অ্যাক্টিভিস্ট অ্যাট ফেয়ার ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের একজন সদস্য। তিনি সেই ছবি ও ভিডিও আপ করেছেন এবং লিখেছেন- আমার এলাকার ও বাংলাদেশের অনেক পোলাপান হাইস্পিড বাইকার এভ্রিলের পাশে থাকার কথা দিয়েছেন! সুতরাং তাদের জন্য দুঃসংবাদ!……. যাদের এভ্রিলের জন্য মায়া কান্না হয়! তাদের জন্য এই ছবিগুলো। সুতরাং সে আমার কোনো বাঙালি মা-বোনের পথপ্রদর্শক হতে পারে না। ছবিগুলো একটু মিলিয়ে দেখবেন!

তার পোস্টের নিচে একজন কমেন্ট করেছেন, ছেলেটি যে এটিই সেটি চিনলাম। বিছানার মেয়েটি এভ্রিল তার কোনো প্রমাণ মেলাতে পারলাম না। এই কমেন্টের ফিরতি উত্তরে মুসা লিখেছেন- মিল না শুধু! এটিই এভ্রিল। আপু।’

এমন আত্মবিশ্বাস দেখে প্রিয়.কম ফেসবুক ইনবক্স মারফত যোগাযোগ করে মুসার সঙ্গে। ফোন নম্বর চাইলে, মুসা মেসেজ সিন করে কোনো রিপ্লাই দেননি। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই জিজ্ঞাসা করা হয়, ওই ছবি এবং ছবিতে থাকা পুরুষটির সম্পর্কে তিনি নিশ্চিত কিনা। কিন্তু, সেই টেক্সট সিনই করেননি মুসা। 

তবে এই ছবিটি ও ভিডিও দুটি যাচাই করার জন্য এভ্রিলের কাছের কয়েকজন মানুষকে পাঠানো হয়েছিল। যারা মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশে প্রতিযোগিতার আসরে এভ্রিলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ছিলেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকটি সূত্র প্রিয়.কমকে জানিয়েছে ছবির মেয়েটি এভ্রিল কিনা তা নিশ্চিত না। তবে মেয়েটির নাক ও চোখ এভ্রিলের মত লাগছে। তবে ভিডিওটি এভ্রিলেরই। 

বলে রাখা ভালো, এর আগে এভ্রিলের বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হলে প্রথমে এভ্রিল অস্বীকার করেন, এবং তিনি বলেছিলেন ছবিগুলো ফেইক। যদিও পরে তা স্বীকার করে নেন, নিজের বয়স নিয়ে মিথ্যা বলা, বিয়ে এবং বিচ্ছেদের প্রসঙ্গ গোপন করাসহ অসংখ্য মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছিলেন বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠেছিল। যদিও তিনি তার শাস্তি পেয়েছেন। তথ্য গোপনের অপরাধে তিনি মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ এর মুকুট হারিয়েছেন। 

Palash3700

     এই বিভাগের আরও সংবাদ